বিশিষ্ট সাংবাদিক রামানন্দ চট্টোপাধ্যায়কে স্মরণ বাঁকুড়ায়

তিমিরকান্তি পতি, বাঁকুড়া: ব্রিটিশের বিরুদ্ধে তাঁর কলম ছিল অক্লান্ত। বাংলায় প্রবাসী, ইংরেজীতে মডার্ণ রিভিউ আর হিন্দিতে বিশাল ভারত সম্পাদনা করেছেন তিনি। তিনি আর কেউ নন বাঁকুড়ার ভূমিপুত্র বিশ্ব বরেণ্য সাংবাদিক রামানন্দ চট্টোপাধ্যায়।

রবিবার বাঁকুড়া জেলা প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে জেলা তথ্য ও সংস্কৃতি দফতরের সহযোগীতায় বঙ্গ বিদ্যালয়ে রামানন্দ চট্টোপাধ্যায়ের ৭৫ তম প্রয়াণ বার্ষিকীর অনুষ্ঠানে কথা গুলি বলেন এশিয়াটিক সোসাইটির বরিষ্ঠতালিকাভূক্তিকারী ডঃ জগৎপতি সরকার।

– Advertisement –

তিনি আরো বলেন, সাংবাদিক রামানন্দ চট্টোপাধ্যায় তাঁর কলমকে হাতিয়ার করে আজীবন মানব সেবায় কাজ করে গিয়েছেন। তিনি রবীন্দ্রনাথ সহ সেই সময়কার বিশিষ্ট জনদের অত্যন্ত কাছের মানুষ ছিলেন। তাঁর কলম এতোটাই শক্তিশালী ছিল যে ভগিনী নিবেদিতা এক সময় বলেছিলেন, রামানন্দ চট্টোপাধ্যায় যদি স্বৈরাচারী ইংরেজদের চাপে পত্রিকা চালাতে না পারেন তবে তিনি নিজে পত্রিকা চালানোর দায়িত্ব তুলে নেবেন।

মৃত্যুর ৭৫ বছর পরেও রামানন্দ চট্টোপাধ্যায়কে নিয়ে মানুষের আগ্রহের শেষ নেই। তাঁর সম্পাদিত পত্রিকা ও তাঁকে নিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে গবেষণা হচ্ছে বলে মুখ্য আলোচক ডঃ জগৎপতি সরকার বলেন।

এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে জেলা তথ্য ও সংস্কৃতি আধিকারীক অরুণাভ মিত্র জেলা প্রেস ক্লাবের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, রামানন্দ চট্টোপাধ্যায়ের জন্ম দিবস যাতে সরকারীভাবে পালন করা যায় সে বিষয়ে তিনি সংশ্লিষ্ট দপ্তরে আবেদন করবেন।

জেলা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সন্তোষ ভট্টাচার্য্য তাঁর স্বাগত ভাষণে বলেন, বিশ্ববরেণ্য সাংবাদিক রামানন্দ চট্টোপাধ্যায়ের উত্তরসূরী হিসেবে আমরা গর্ববোধ করি। প্রেস ক্লাবের পক্ষ থেকে প্রতিবছর আমরা রামানন্দ জন্মদিবস পালন করি। এবছর এই মহান মানুষটির মৃত্যুর ৭৫ বছর পূর্ণ হচ্ছে। সেই উদ্দেশ্যেই এবছর বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হলো। একই সঙ্গে তিনি বলেন, রামানন্দ চট্টোপাধ্যায়ের জন্ম দিবস ২৯ মে দিনটিকে সরকারীভাবে ‘সাংবাদিক দিবস’ হিসেবে পালনের দাবীতে তারা অনড় থাকছেন।

এদিন এই অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকেই প্রবীণ সাংবাদিক শ্যামাপদ চৌধুরী ও প্রবীণ চিত্র সাংবাদিক অজিত মিশ্রকে সম্বর্ধনা জানানো হয়। একই সঙ্গে গান ও কবিতা ও আলোচনার মাধ্যমে বিশ্ববরেণ্য সাংবাদিক রামানন্দ চট্টোপাধ্যায়কে এদিন স্মরণ করা হয়।

এদিনের অনুষ্ঠানে ডঃ জগৎপতি সরকার, জেলা তথ্য ও সংস্কৃতি আধিকারীক অরুণাভ মিত্র, আয়োজক প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সন্তোষ ভট্টাচার্য্য, সভাপতি সুনীল কুমার দাস প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Advertisement

Leave a Reply

Your email address will not be published.