দিল্লিতে মুকুল-কৈলাসের সঙ্গে বৈঠক দীপার

নয়াদিল্লি: সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের আগে ক্রমশ রঙিন হচ্ছে রাজনীতির রঙ্গমঞ্চ। ভোটের মুখে দলবদল যেন সেই বিষয়টিকে আরও রঙিন করে তুলেছে।

সোমবার রাতের দিকে দিল্লিতে এক টেবিলে বৈঠকে বসেছেন কংগ্রেস নেত্রী দীপা দাশমুন্সি এবং বিজেপি নেতা মুকুল রায়। পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির পর্যবেক্ষক অরভিন্দ মেননের বাড়িতে চলছে এই বৈঠক। রাজ্যের অপর এক পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় এই বৈঠকে উপস্থিত রয়েছেন। এমনটাই জানা গিয়েছে সূত্র মারফত।

গত তিন দিন ধরে দীপা দাশমুন্সির বিজেপি যোগ নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছিল। যার মূল কারণ হচ্ছে রাজ্যে বাম-কংগ্রেস জোট। বাম-কংগ্রেসের আসন সমঝোতার জট আটকে ছিল মুর্শিদাবাদ-রায়গঞ্জে। শুক্রবার সন্ধ্যায় কংগ্রেসের চাপ বাড়িয়ে রায়গঞ্জ ও মুর্শিদাবাদে মহম্মদ সেলিম ও বদরুদ্দোজা খানের নাম ঘোষণা করে দেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু। এঁরা দু’জনেই গতবারের জয়ী সাংসদ।

২০১৪ সালে রায়গঞ্জ আসন থেকে প্রার্থী হয়েছিলেন দীপা দাশমুন্সি। নিজের খাসতালুক থেকেই ফের লড়াই করতে চান ‘প্রিয়পত্নী’। যদিও তাঁর এই দাবিকে গুরুত্ব দিচ্ছে না কংগ্রেস হাইকম্যান্ড। বৃহত্তর স্বার্থে বামেদের জন্য রায়গঞ্জ আসন ছেড়ে দিয়ে দীপা দাশমুন্সিকে রাজ্যসভায় পাঠানোর পরিকল্পনা করেছে কংগ্রেস। এই বিষয়ে নেত্রী দীপার সঙ্গে খোদ সভাপতি রাহুল গান্ধী কথা বলেছেন বলে খবর।

যদিও নিজের অবস্থানে অনড় রয়েছেন দীপা দাশমুন্সি। তিনি রায়গঞ্জ থেকেই লোকসভা নির্বাচনে লড়াই করতে চান। বাম-কংগ্রেস জোট চূড়ান্ত হতেই শনিবার তিনি মুকুল রায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন বলে শোনা গিয়েছিল। যদিও সেই বিষয়টিকে সম্পূর্ণ গুজব বলে উড়িয়ে দিয়েছিল দীপা দাশমুন্সির অনুগামীরা। এই নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতেও তাঁরা প্রচার শুরু করে দিয়েছিলেন। রবিবার পর্যন্ত তাঁদের দাবি ছিল, “প্রিয় রঞ্জন দাশমুন্সির স্ত্রী কোনোভাবেই কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যাবেন না।”

দিন দুই পরে অবশ্য সেই সকল কংগ্রেস নেতাকর্মীদের গলার স্বর একটুই অন্যরকম। সোমবার দিল্লিতে অরভিন্দ মেনন, মুকুল রায় এবং কৈলাস বিজয়বর্গীয়ের সঙ্গে দীপা দাশমুন্সির বৈঠকের বিষয়ে তাঁরা সকলেই মুখে কুলুপ এঁটেছেন। দীপা দাশমুন্সি কী কংগ্রেসেই থাকছেন? এই বিষয়ে কোনও জোরাল জবাব আর পাওয়া যাচ্ছে না। ২৪ ঘণ্টা আগেও খুব জোর গলায় এই প্রশ্নের জবাব দিয়েছিলেন তাঁরা। যা থেকে জোরাল হচ্ছে কংগ্রেসের দীর্ঘদিনের নেত্রী দীপা দাশমুন্সির বিজেপি যোগের সম্ভাবনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.