এয়ার ইন্ডিয়াতে শতাধিক ইঞ্জিনিয়ার পদে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি

শূন্যপদে ইঞ্জিনিয়ার নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি জারি করল এয়ার ইন্ডিয়া ইঞ্জিনিয়ারিং সার্ভিস লিমিটেড৷ এয়ারক্রাফট ম্যানটেনেন্স ইঞ্জিনিয়ার(এএমই) পদে শতাধিক ইঞ্জিনিয়ার করা হবে৷ জেনে নিন খুঁটিনাটি তথ্য৷

এআইইএসএল রিক্রুটমেন্ট ২০১৯: পদ
Fresh Vacancies – 141 posts
Carried Forward – 19 posts

যোগ্যতা: আবেদনকারীর নুন্যতম শিক্ষাগত যোগ্যতা হওয়া চাই ১০+২৷ প্রতিষ্ঠিত কোনও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে বিজ্ঞান বিভাগে পড়াশোনা করা চাই৷ বিষয় হবে ফিজিক্স, কেমিষ্ট্রি ও অংক৷

– Advertisement –

বয়স: ৫৫ বছর বয়স অবধি এই পদে আবেদন করা যাবে৷ ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ সালের পর ৫৫ বছর অতিক্রম হয়ে গেলে আবেদন করা যাবে না৷

নির্বাচন পদ্ধতি: পার্সোনাল ইন্টারভিউয়ের মাধ্যমে নিয়োগ করা হবে৷ ইন্টারভিউ হবে সকাল সাড়ে ৯টা থেকে ১২টার মধ্যে৷ ইন্টারভিউয়ের তারিখ নিচে উল্লেখ করা হয়েছে৷ ওই দিনগুলিক মধ্যে ইন্টারভিউ বোর্ডের সামনে হাজির হতে হবে৷ তবে এই ইন্টারভিউ হবে দিল্লির এয়ার ইন্ডিয়ার জেট ইঞ্জিন ওভারহউল কমপ্লেক্স৷ আবেদনকারীর ইন্টারভিউ নেবে হিউমান রিসোর্স ডিপার্টমেন্ট৷

পে স্কেল: চাকরির জন্য নির্বাচিত হলে মাসিক মাইনে হবে ৯৫ হাজার থেকে ১ লক্ষ ২৮ হাজার টাকা৷

কী করে আবেদন করবেন? ১ এপ্রিল থেকে ১২ এপ্রিল নির্ধারিত সময়ে হবে ইন্টারভিউ৷ ঠিক সময়ের মধ্যে এয়ার ইন্ডিয়ার জেট ইঞ্জিন ওভারহউল কমপ্লেক্সে পৌঁছে যেতে হবে৷ সঙ্গে নিয়ে যেতে হবে আবেদন ফি৷ জেনারেলদের জন্য এই ফি ১০০০ টাকা৷ এসসি/এসটি ও অবসরপ্রাপ্ত সেনাদের জন্য ফি ৫০০ টাকা৷ এই টাকাটি ফেরতযোগ্য নয়৷ ইন্টারভিউয়ের সময় ফি জমা দিতে হবে৷ এছাড়া প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট যেমন পরীক্ষার রেজাল্ট ইত্যাদির অরিজিনাল কপি নিয়ে যেতে হবে৷

চাকরির মেয়াদ: পাঁচ বছর

এক লক্ষ শূন্য পদে নিয়োগ করবে রেল, রেজিস্ট্রেশন শুরু আগামিকাল

রেলের গ্রুপ ডি শূন্যপদে এক লাখেরও বেশি লেভেল ওয়ানের জন্য রেজিস্ট্রেশন শুরু হবে আগামিকাল অর্থাৎ মঙ্গলবার থেকে। ভারতীয় রেলের জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, রেলওয়ে রিক্রুটমেনট বোর্ড (আরআরবি) গ্রুপ ডি ২০১৯-এর আবেদনের প্রক্রিয়া শুরু হবে আরআরবির নিজস্ব ওয়েব সাইটে। আগামিকাল বিকেল ৫ টা থেকে শুরু হবে সেই প্রক্রিয়া। ২০১৯ -এর ২৩  ফেব্রুয়ারি ভারতীয় রেল তাঁদের এমপ্লয়মেন্ট সংবাদে আরআরবি গ্রুপ ডি অথবা লেভেল ওয়ান পদে নিয়োগ প্রক্রিয়ার জন্য নির্দেশক বিজ্ঞাপন প্রকাশ করেছে।

এই বিজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, লেভেল ওয়ান পদে নিয়োগের রেজিস্ট্রেশন করা যাবে আরআরসি ওয়েব সাইট থেকে। এই বিষয়ে বিস্তারিত বিজ্ঞাপন প্রকাশিত হবে আগামিকাল। বিস্তারিত বিজ্ঞাপন প্রকাশের পরে খালি পদের মোট সংখ্যা স্পষ্ট হবে। পূর্বের নিয়োগ প্রক্রিয়া থেকে স্পষ্ট আরআরবি গ্রুপ ডি পদে আবেদনের জন্য অন্তত মাধ্যমিক পাশ করতে হবে আবেদনকারীকে অথবা তাঁর এনসিভিটি / এসসিভিটি-এর সার্টিফিকেট থাকতে হবে। অন্য পদের ক্ষেত্রে যোগ্যতার মাপকাঠি অবশ্য অন্যরকম হবে।

লেভেল ওয়ান পদে নিয়োগের জন্য রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া শুরু করার আগে প্রার্থীদের সাবধানে বিস্তারিত বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে যেতে পরামর্শ দেওয়া হয়। বোর্ড প্রার্থীদের নির্বাচনের জন্য কম্পিউটার ভিত্তিক পরীক্ষা (সিবিটি) পরিচালনা করবে। ভারতীয় রেলওয়ে সম্প্রতি ৬২,000 গ্রুপ ডি বা লেভেল ওয়ান পোস্টের জন্য নির্বাচন প্রক্রিয়ার প্রথম পর্যায় শেষ করেছে। আরআরবির গ্রুপ ডি পদে নিয়োগের ক্ষেত্রে প্রথম পর্যায়টি ছিল সিবিটি, যা পরিচালনা করে রেলওয়ে নিয়োগ বোর্ড (আরআরবি)।

– Advertisement –

রেলওয়ে নিয়োগ সেল (আরআরসি) দ্বারা ডকুমেন্ট যাচাইকরণ এবং শারীরিক মান পরীক্ষা (পিএসটি)র পরবর্তী প্রক্রিয়া পরিচালনা করা হবে। ভারতীয় রেলওয়ে এনটিপিসির সঙ্গে লেভেল ওয়ান পদের শূন্যস্থান নিয়ে নিয়োগ ঘোষণা করেছে। আরআরবি তিন বছর পর এনটিপিসি পোস্টের জন্য নিয়োগ করছে। ২০১৫ সালে শেষ এনটিপিসি নিয়োগ ঘোষণা করা হয় এবং ২০১৭ সালে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়।

ইন্ডিয়ান ওয়েল কর্পোরেশনে একাধিক পদে কর্মী নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

মুম্বই: তরতরিয়ে বাড়িছে বেকারত্বের পারদ৷ কিন্তু, তার মাঝেই রয়েছে সুযোগ৷ ইন্ডিয়ান ওয়েল কর্পোরেশন লিমিটেড (আইওসিএল) শূন্যপদ পূরণের জন্য জারি করল বিজ্ঞপ্তি৷ পদের নাম অ্যাসিস্টেন্ট অফিসার৷ আগ্রহী প্রার্থীরা অনলাইনে অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের (www.iocl.com.) মাধ্যমে আবেদন জানাতে পারেবন৷ শুধুমাত্র ভারতীয়রাই পদটির জন্য আবেদন জানাতে পারবেন৷

পদটির জন্য আবেদন করতে হলে প্রার্থীকে অবশ্যই হতে হবে স্নাতোকত্তীর্ণ৷ শুধু তাই নয়, সঙ্গে থাকতে হবে কমপক্ষে ৫৫ শতাংশ নম্বর৷ এছাড়াও, সিএ/সিএমএ ইন্টারমিডিয়েট উত্তীর্ণ হতে হবে প্রার্থীকে৷ যথোপোযুক্ত কাজের অভিজ্ঞাতাও প্রয়োজন রয়েছে পদটির জন্য৷ নির্বাচিত প্রার্থীদের শুরুতে বেতন (বেসিক পে) থাকছে প্রতি মাসে ৫০,০০০ টাকা৷ এছাড়াও, তারা ডিএ সহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধাও পাবেন৷

– Advertisement –

পদটির জন্য আবেদনের বয়সসীমা থাকছে ৩০ বছর পর্যন্ত৷ এছাড়া, তফশিলি জতি উপজাতি প্রার্থীরা বয়সসীমাতে বিশেষ ছাড় পাবেন৷ সিএ/সিএমএ ইন্টারমিডিয়েট স্কোরের উপর ভিত্তি করেই উপযুক্ত প্রার্থীর নির্বাচন করবে আইওসিএল৷ নতুন সম্ভাবনাকে খুঁজে বের করতেই নয়া উদ্যোগ আইওসিএলের৷ মার্কেটিং, বিজনেস ডেভালপমেন্ট, পাইপলাইন, কর্পোরেট ইত্যাদি যে কোন বিভাগেই পোস্ট করা হতে পারে নির্বাচিত প্রার্থীদেরকে৷ নিয়োগের দিন প্রার্থীকে কমপক্ষে তিন বছরের একটি বন্ড ফিল-আপ করতে হবে৷ বিশদ জানতে চোখ রাখুন সংস্থার অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে৷

রাজ্য পুলিশের হোমগার্ডে শতাধিক নিয়োগ

নিজস্ব সংবাদদাতা, লখনউ: পুলিশের হোম গার্ড পদের জন্য মোট ২৩২ জনকে নির্বাচন করা হয়েছে। বাতিল করে দেওয়া হয়েছে ১৬৫ জনের নাম।

ইউপিপিআরপিবি বা উত্তর প্রদেশ পুলিশ রিক্রুটমেনট অ্যানড প্রোমোশন বোর্ড একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়েছে কেন বাদ দেওয়া হয়েছে ১৬৫ জনের নাম। তাদের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী ওই প্রার্থীদের বয়স ২২ শে ফেব্রুয়ারি ২০১৮ এর হিসেবে ২১ বছরের কম।

কিন্তু, হোম গার্ড পদের জন্য ১৮ বছর বয়সই হল আবেদনের জন্য প্রার্থীর বয়সের শেষ সময়সীমা। এও জানানো হয়েছে, আবেদনকারীদের কাছ থেকে প্রচুর পরিমানে অভিযোগ পেয়েছে ইউপিপিআরপিবি।

যাতে তাঁরা জানতে পেরেছেন, ভুলবশত হোম গার্ড পোস্টের জন্য আবেদন করে ফেলেছেন অনেক প্রার্থীই। তাঁরা মূলত সিভিল অথবা পিএসি পদের জন্য আবেদন করতে চেয়েছিলেন। অবশেষে, ২৩২ জন প্রার্থীকেই বেছে নেওয়া হয়েছে যারা এই চাকরীর জন্য যোগ্য।

নির্বাচিত প্রার্থীদের তালিকাও বোর্ডে প্রকাশ করে দেওয়া হয়েছে। বাতিল করে দেওয়া আবেদনগুলির তালিকা ইউপিপিআরপিবি’র নিজস্ব ওয়েব সাইট uppbpb.gov.in তে দেখা যাবে। বেছে নেওয়া প্রার্থীদের লখনউতে বোর্ডের হেড কোয়ার্টারে পরীক্ষার পরবর্তী পর্যায়ের জন্য যেতে হবে আগামী ৫ই মার্চ। রেজাল্ট দেখা যাবে- uppbpb.gov.in -এ লগ ইন করে।

ফাইল ছবি।

অন্য দিকে, ইউপিপিআরপিবি ২০১৬ সালের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ করেছে। এই নিয়োগ প্রক্রিয়ায় ৫,৪২,১২৪ জন প্রার্থীর মধ্যে ২১৮১ জনকে নেওয়া হয়েছে।

২০১৯ সালের উত্তর প্রদেশ পুলিশের হোম গার্ড শাখায় বাদ পড়া নামগুলি জানতে নীচের পর্যায়গুলি অনুসরণ করুন –
Step 1: Visit the official website, uppbpb.gov.in
Step 2: On the homepage, click on the link ‘UP home guard result’
Step 3: A PDF will open, check the list
Step 4: Find your roll number

——- —-

১ লক্ষ ৩০ হাজার শূন্য পদে নিয়োগ করবে রেল

নয়াদিল্লি: রেলে চাকরী প্রার্থীদের জন্য সুখবর । ১,৩০০০০ শূন্য পদে নিয়োগ করবে রেল। রেলওয়ে রিক্রুটমেন্ট বোর্ড ঘোষণা করল ১,৩০০০০ শূন্য পদে নিয়োগ হবে। এনটিপিসি,প্যারা মেডিকেল স্টাফ, মিনিস্টারিয়াল এবং আইসোলেটেড ক্যাটাগরি ও লেভেলে যারা চাকরি খুঁজছেন তারা ২৮ শে ফেব্রুয়ারি ২০১৯ থেকে অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন।

আরআরবি ও এনটিপিসি-এর জন্য আবেদন জানানো যাবে ২৮ ফেব্রুয়ারি থেকে। প্যারা মেডিকেল স্টাফদের ক্ষেত্রে এই আবেদন করা যাবে ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে। আরআরবি মিনিস্টারিয়াল ও আইসোলেটেড ক্যাটাগরিদের জন্য আবেদনের দিন ৮ মার্চ।

আরআরবি লেভেল ওয়ান পোস্টের জন্য আবেদন করা যাবে ১২ই মার্চ থেকে।

শিক্ষাগত যোগ্যতা: ২০১৯এর আরআরবি এনটিপিসি-এর বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী

বয়স সীমা: সর্বনিম্ন – ১৮ বছর
সর্বোচ্চ – ৩৩ বছর

নির্বাচন প্রক্রিয়া – কম্পিউটার পরীক্ষার ভিত্তিতে নির্বাচন হবে।

আবেদন মূল্য – এস সি / এস টি / এক্স সার্ভিস ম্যান / পি ডব্লু বি ডি এস / ফিমেল / ট্র্যান্সজেন্ডার / মাইনরিটিস / ইকনমিক্যালি ব্যাকওয়ার্ড ক্লাস – ২৫০ টাকা, অন্যান্য – ৫০০ টাকা

প্রয়োজনীয় তারিখ –
আবেদন শুরুর তারিখ – ২৮.২. ২০১৯
আবেদন শেষের তারিখ – খুব শীঘ্রই জানানো হবে

——- —-

প্রচুর লোক নিয়োগ করতে মেগা র‍্যালি শুরু করছে ভারতীয় সেনা

নয়াদিল্লি: প্রচুর লোক নিয়োগ করছে ভারতীয় সেনা। মার্চ মাসেই মেগা রিক্রুটমেন্ট র‍্যালির আয়োজন করেছে সেনাবাহিনী মূলত অসম, অন্ধ্রপ্রদেশ, ঝাযখণ্ড, চেন্নাই, পুদুচেরি, রাজস্থান, নাগাল্যান্ড ও পঞ্জাবে এই র‍্যালি হবে মার্চ থেকে এপ্রিল পর্যন্ত।

শারীরিক পরীক্ষা ও মেডিক্যাল টেস্ট করা হবে প্রথমে। এরপর বসতে হবে কমন এন্ট্রান্স এক্সামিনেশনে। অফিশিয়াল ওয়েবসাইট joinindianarmy.nic.in-এ মিলবে অ্যাডমিট কার্ড। র‍্যালিতে নিয়ে যেতে হবে সেই কার্ড।

দেখে নিন কবে, কোথায় হবে সেই র‍্যালি:

Army recruitment rally, Secunderabad: March 30

Army recruitment rally, Rajasthan: March 25 to 26 at Indira Gandhi Stadium, Alwar

Army recruitment rally, Arunachal Pradesh: March 7 at Mariani, Assam

Army recruitment rally, Tripura: March 7 at Mariani, Assam

Army recruitment rally, Ranchi: April 1 to 15

Army recruitment rally, Ludhiana: March 10 to 20

Army recruitment rally, Assam: March 2 to 9, 2019 at Mariani, Assam

যোগ্যতা:

Soldier General: দশম শ্রেনি পাশ হতে হবে। অন্তত ৪৫ শতাংশ নম্বর পেতে হবে। প্রত্যেক বিষয়ে ৩৩ শতাংশ নম্বর থাকা জরুরি। গোর্খা প্রার্থীদের দশম শ্রেণির সার্টিফিকেট থাকা বাধ্যতামূলক।

Soldier Clerk: দ্বাদশ শ্রেণি পাশ হতে হবে। ৫০ শতাংশ নম্বর পেতে হবে।

বয়স: ২১ বছরের কম বয়সীরা আবেদন করতে পারবেন। অন্তত সাড়ে ১৭ বছরের বেশি বয়স হতে হবে।

কবে এন্ট্রান্স টেস্ট হবে, তা পরে জানানো হবে।

মাধ্যমিক পাশ করলেই চাকরি, ২০ হাজার শূন্যপদে নিয়োগ শুরু

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: প্রায় ১২ বছর বন্ধ থাকার পর আবারও ক্লার্ক নিয়োগ করতে চলেছে পশ্চিমবঙ্গ পাবলিক সার্ভিস কমিশন৷ শিক্ষাগত যোগ্যতা মাধ্যমিক৷

শুক্রবার(২২.০২.২০১৯) সকাল ১১.৩০ মিনিট থেকে আবেদন করা যাবে৷ আবেদন করার শেষ তারিখ মার্চ মাসের ২৫ তারিখে (২৫,০৩.২০১৯) রাত্রি ১২টা৷ আবেদন করার জন্য জেনারেল ক্যাটাগরির প্রার্থীদের জন্য ১১০ টাকা লাগবে৷ এসটি এসসি কোটার প্রার্থীথের জন্য কোনও রকম ফিজ লাগবে না৷

বয়সের উর্দ্ধসীমা: ১৮ বছরের কম এবং ৪০ বছরের বেশি হওয়া যাবে না ১.১.২০১৯ ধরে৷ আবেদনকারীর বয়স ২ জানুয়ারি ১৯৭৯ থেকে ১ জানুয়ারি ২০০১ এর মধ্যে হতে হবে৷ কোটার প্রার্থীরা নিয়ম অনুসারে ছাড় পাবেন৷

প্রয়োজনীয় শিক্ষাগত যোগ্যতা: মাধ্যমিক পাশ৷ এবং বেসিক কম্পিউটার নলেজ এবং মিনিটে ২০টি ইংরাজী শব্দ এবং এক মিনিটে ১০টি বাংলা শব্দ টাইপ স্পিড থাকতে হবে৷ আবেদনকারীকে বাংলা পড়তে লিখতে এবং বলতে জানতে হবে৷ (নেপালী বলা লোকদের জন্য ছাড়)৷

অনলাইনে আবেদন করতে এই লিঙ্কে গিয়ে: www.pscwbapplication.in চালান ডাউনলোড করে কিংবা অনলাইনে পরীক্ষার ফিজ জমা দিতে পারবেন৷

মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের জন্য শেষ মুহূর্তে প্রস্তুতির টিপস

মঙ্গলবার থেকে শুরু হতে চলেছে মাধ্যমিক পরীক্ষা৷ তাই পরীক্ষার্থীদের এখন শিরে সংক্রান্তি৷ তাই পরীক্ষার আগে তাদের জন্য রইল কিছু টিপস৷ এই টিপসগুলো পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা আরও ভালো করতে সাহায্য করবে৷

পড়াশোনা: পরের দিন যে বিষয়ের পরীক্ষা আছে তার পড়া ভালো করে ঝালিয়ে নিতে হবে৷ পারলে একবার পুরো বইটা চোখ বুলিয়ে নেওয়ার চেষ্টা কর৷ কারণ এখন একটা ভালো নম্বরের ছোট প্রশ্ন থাকে৷ তাই এক্ষেত্রে বিশেষ সুবিধা হবে ছাত্রছাত্রীদের৷ এছাড়া বড়ো প্রশ্নগুলো আলাদা করে দেখে নিও৷

মানসিক প্রস্তুতি: সকলেই স্কুল জীবনে অনেক পরীক্ষা দিয়েছে৷ কিন্তু মাধ্যমিক পরীক্ষা একটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ পড়ুয়াদের কাছে৷ তাই সকলের একটা চিন্তা হওয়া স্বাভাবিক৷ কিন্তু তা বলে অহেতুক চিন্তা করাটা উচিত না৷ কারণ এতে যা যা পড়েছো তা ভুলে যেতে পারো৷ তাই বেশি চিন্তা না করে শুধু ভাবো তুমি সব পারবে৷

শারীরিক প্রস্তুতি: এখন পরীক্ষা একদম দোরগোড়ায় তাই কোনও ফাস্টফুড জাতীয় খাবার আর না খেলে ভালো হয়৷ সহজ পাচ্য খাবার খাওয়াই শ্রেয়৷ আবার অনেক চিন্তায় খাওয়া বন্ধ করে দেয়৷ সেটাও কিন্তু খারাপ৷ তাছাড়া পরীক্ষার আগের দিন বেশি রাত করে ঘুমোতে না যাওয়াই ভালো৷

খাতায় মার্জিন দেওয়া: পরীক্ষার খাতায় প্রতি পাতায় অবশ্যই চওড়া করে মার্জিন দেবে৷ এতে পরীক্ষকের নম্বর দিতে সুবিধা হয়৷

বিভাগ শেষে দাগ দেওয়া: প্রতিটি বিভাগের উত্তর লেখা শেষ হলে শেষে একটা লম্বা দাগ টেনে দেওয়া উটিত৷ এতে শিক্ষকের বুঝতে ও নম্বর দিতে সুবিধা হবে৷ কোন একটি বিভাগের মধ্যে অন্য বিভাগের প্রশ্ন লিখবে না৷

বানান ভুল এড়িয়ে চলা: বানান ভুল যথাসম্ভব এড়িয়ে চলবে৷ দরকার পরলে ভেবে চিন্তা বানানটা লেখো৷

সঠিক প্রশ্নের নম্বর দেওয়া: প্রশ্নপত্রে ঠিক যেভাবে ক্রম (question number) দেওয়া আছে ঠিক সেভাবেই খাতায় লিখবে৷

শব্দ সংখ্যা মেনে চলা: প্রশ্নপত্রে প্রতিটা প্রশ্নের নির্দিষ্ট শব্দ সংখ্যা উল্লেখিত থাকে৷ সেই অনুযায়ী যথাযথ শব্দ ও সময় ব্যাবহার করবে৷ অযথা ও অপ্রয়োজনীয় কিছু লিখবে না৷ যেমন বাংলায় প্রবন্ধের ক্ষেত্রে কম করে চারশো শব্দ থাকতেই হবে৷ তাই এর জন্য নূন্যতম তিরিশ মিনিট বরাদ্দ করবে৷

সঠিক টেনস নির্বাচন করা: ইংরাজির ক্ষেত্রে প্রশ্ন যে টেনসে করা হয়েছে, তার উত্তরও সেই টেনসেই দিতে হবে৷ একটি বাক্যে যেন একাধিক বার ব্যবহার না করা হয় সেই দিকে লক্ষ রাখা উচিত। ‘True – False’ প্রশ্নের ক্ষেত্রে ‘T’ বা ‘F’ যেন পরিষ্কারভাবে লেখা হয়৷ একটু অপরিষ্কার হলেই পরীক্ষক নম্বর নাও দিতে পারেন।

হাতের লেখা ঠিক রাখা: মুক্তোর মতো হাতের লেখা না হলেও চলবে৷ তবে তোমার লেখা যেন পরীক্ষক পড়তে পারেন।

সময়ের সঠিক ব্যবহার: তিন ঘণ্টা সময় উত্তর লেখার জন্য যথেষ্ট৷ এটা সব সময় মনে রাখবে। অযথা হুড়োহুড়ি করে প্রশ্নের উত্তর দেবে না৷ এতে বানান ও উত্তর ভুলের সম্ভাবনা অনেকটাই বেড়ে যায়৷

প্রথম পনেরো মিনিটের উপকারিতা: প্রথমে প্রশ্ন পড়ার জন্য যে অতিরিক্ত সময় পাবে তাতে ভালো করে খুঁটিয়ে প্রশ্ন পড়বে। প্রতিটা বিভাগে যে প্রশ্নগুলো ভালোভাবে পারবে সেগুলিকে নির্বাচন করবে এবং সেগুলিই আগে লিখবে।

শেষ মুহূর্তের ঝলক: পরীক্ষার শেষ ঘণ্টা অবধি অপেক্ষা করবে। যতবার পারবে পুরো উত্তরপত্র খুঁটিয়ে পড়বে। খাতা জমা দেওয়ার আগে কমপক্ষে একবার খাতা ভালো করে দেখে নেবে।

আর একটা কথা কোন পরীক্ষা খারাপ হলে সেটা নিয়ে বেশি চিন্তা না করাই ভালো৷ এতে পরের পরীক্ষার উপর প্রভাব পড়তে পারে৷

সুখবর! কাজের সুযোগ বাড়ছে এই দেশে

কলকাতা:  ইটালির অটোমোবাইল শিল্প দ্রুত বেড়ে চলেছে। ফলে ইটালির লোম্বার্ডি অঞ্চলে ৫০ শতাংশের বেশি গাড়ির যন্ত্রাংশও তৈরি হচ্ছে। ফলে সেখানে অটোমোবাইল শিল্পের জন্য এ দেশের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারদের জন্য কাজের সুযোগ বাড়ছে৷বেঙ্গল বিজনেস গ্লোবাল সামিট (‌বিজিবিএস)–এ যোগ‌ দিয়ে এ কথা জানালেন লোম্বার্ডি মোবিলিটি ক্লাস্টারের ক্লাসটার ম্যানেজার–মহাসচিব অধ্যাপক জিয়ানপিয়েরো মাসতিনু।

তিনি জানান, ওই অঞ্চলে উৎপাদন করা হয় লোম্বর্গনি, ফিয়াদ, আলফা রোমিও, মাসেরাতি, লান্সিয়া এবং ফেরারির মতো বিশ্ববিখ্যাত গাড়ি। তাঁর কথায়, ‘‌আমাদের দেশে বিশ্বমানের প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এর মধ্যে পলিটেকনিকো মিলানো ১৮৬৩ ইটালির এক নম্বর, ইউরোপের তিন নম্বর। সেখানে ৪২ হাজার পড়ুয়া পড়াশোনা করেন। এখানকার পঠনপাঠনের মান খুব উন্নত। অটোমোবাইল শিল্প দ্রুত বেড়ে চলছে। তাই এদেশের চূড়ান্ত বর্ষের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়াদের সেখানে আহ্বান জানাচ্ছি।

প্রসঙ্গত সেখানে অনেক ভারতীয় পড়ুয়া ইতিমধ্যে রয়েছেন বলেও তিনি জানান। তবে তিনি চান আরও বেশি ভারতীয় পড়ুয়া সেখানে পড়াশোনা করুন, পিএইচডি করুন। পরে সেখানে কাজের সুযোগও রয়েছে। এ দেশের আইআইটিগুলি পরিদর্শনের পরিকল্পনা রয়েছে তাঁর। তাঁর আশা, ইটালিতে উচ্চশিক্ষার জন্য এ দেশের পড়ুযারা আগ্রহ দেখাবেন।

ফের স্কুলে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি, প্রচুর সুযোগ

নয়াদিল্লি: ফের স্কুলে প্রচুর চাকরির সুযোগ৷ আর্মি পাবলিক স্কুল পাঠানকোটে টিচিং এবং নন টিচিং স্টাফ নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশিত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷ ইচ্ছুক এবং যোগ্য প্রার্থীরা আবেদন করতে পারেন৷ আবেদন করার শেষ তারিখ ১৫ ফেব্রুয়ারি৷ বাকি বিস্তারিত তথ্য একনজরে-

টিচিং স্টাফ শূন্য পদের সংখ্যা এবং যোগ্যতা-
ফিজিক্স- ০১ , হিন্দি- ০১, বায়োলজি- ০১, পলিটিক্যাল সায়েন্স- ০১, ইতিহাস- ০১৷ স্বীকৃত প্রতিষ্ঠান বা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে নির্দিষ্ট বিষয়ে কমপক্ষে ৫০ শতাংশ নম্বরে এবং সেই সঙ্গে ব্যাচেলর অথবা মাস্টার ডিগ্রী থাকতে হবে, থাকতে হবে বিএড৷ এডব্লিউইএস স্কোর কার্ড থাকতে হবে এবং সিটেট পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে৷

টিজিটি (কাউন্সিলর) পদে শূন্য সংখ্যা- ০১, যোগ্যতা- কমপক্ষে ৫০ শতাংশ নম্বর, সঙ্গে সাইকোলজি বিষয়ে ব্যাচেলর ডিগ্রী থাকতে হবে৷ কাউন্সিলিংয়ে ডিপ্লোমার সঙ্গে সঙ্গে তিন বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে৷ এডব্লিউইএস স্কোর কার্ড থাকতে হবে এবং সিটেট পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে৷

এছাড়াও আরও বহু শূন্যপদের বিবরণী দেওয়া হয়েছে৷ তবে আবেদন করতে হলে বয়স ২০১৯-এর এপ্রিলে ৪০ বছরের কম হতে হবে৷ শর্টলিস্ট করে প্রার্থীদের ইন্টারভিউ নেওয়া হবে৷ আবেদনের জন্য় ফি-১০০ টাকা৷ ডিমান্ড ড্রাফটের মাধ্যমে এটি দিতে হবে৷

আবেদনের জন্য www.apspathankot.org ওয়েবসাইটটিতে যেতে হবে৷