রাজ্যে অশান্তি বাঁধাতেই সাত দফা ভোটের ব্যবস্থা বিজেপির: মমতা

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রাজ্যে সাত দফার নির্বাচনের ঘোষণা হতেই ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তাঁর কড়া মন্তব্য “রাজ্যে অশান্তি বাঁধাতেই এই সাত দফার নির্বাচনের ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ এজন্য বিজেপি দায়ি৷ বিজেপি চাইছে ভোটের সময় রাজ্যে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হোক”

তবে এরই পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী বলেন ‘একই জায়গায় দুদিনে ভোটের তারিখ ফেলা হয়েছে৷ কি যুক্তি রয়েছে এই ধরণের ঘোষণায়? তবে আমি খুশি, আমাদের খাটনি আর দায়িত্ব কমল৷ বিজেপির অশান্তি বাঁধানোর পরিকল্পনা সফল হবে না৷ রাজ্যের ৪২টি আসনের সবকটিই পাবে তৃণমূল কংগ্রেস’৷

আরও পড়ুন : জেনে নিন VVIP প্রার্থীদের আসনে কবে হবে নির্বাচন

– Advertisement –

গোটা দেশের অন্য রাজ্যগুলিতেই তৃণমূল প্রচার চালাবে বলে এদিন জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তিনি আরও বলেন কিছু সাংবাদিকের থেকে তিনি খবর পেয়েছেন এপ্রিল মাসে আরও একটি স্ট্রাইক হতে চলেছে৷ ঠিক কি ধরণের স্ট্রাইক হবে এটি জানা যায়নি৷ তবে মমতা বলেন বিজেপির এরকম পরিকল্পনার কথা জানতে পেরেছেন তিনি৷

রাজনৈতিক দিক থেকে এই সাত দফা ভোট নিয়ে তৃণমূল উদ্বিগ্ন নয় বলেও জানান মমতা৷ তবে ভোটারদের অসুবিধার কথা ভাবছেন তাঁরা৷ তিনি জানান ভোটারদের স্বাচ্ছন্দ্যের কথা মাথায় রাখা উচিত ছিল নির্বাচন কমিশনের৷ গোটা এপ্রিল-মে মাস জুড়ে বেশ গরম থাকবে৷ সেই আবহাওয়ায় কষ্ট পাবেন তাঁরা৷

আরও পড়ুন : লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির ভাগ্য এই ছয় রাজ্যের হাতে

এরই সঙ্গে মঙ্গলবার প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করা হবে বলেও উল্লেখ করেন তৃণমূল নেত্রী৷ তিনি বলেন মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে তিনটে নাগাদ একটি সাংবাদিক বৈঠক করা হবে৷ তার আগে তৃণমূলের কোর কমিটির বৈঠক হবে৷ যেখানে প্রার্থী তালিকা নিয়ে চূড়ান্ত আলোচনা চলবে৷

কলকাতায় আসছেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: পাকিস্তানের খাইবার-পাখতুনখোয়ার বালাকোটে ভারতীয় বায়ুসেনার ‘এয়ার সার্জিকাল স্ট্রাইকে’র পর প্রথমবার কলকাতায় আসছেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। আগামী ১৭ মার্চ রবিবার কলকাতায় তাঁকে নাগরিক সংবর্ধনা দেবে শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী রিসার্চ ফাউন্ডেশন।

বিধাননগরের ইস্টার্ন জোনাল কালচারাল কমপ্লেক্সে ওইদিন ‘রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা এবং পশ্চিমবঙ্গের অবস্থান’ নিয়ে বক্তব্যও রাখবেন নির্মলা। তবে শুধু নির্মলাই নন, একই মঞ্চে বক্তব্য রাখবেন বিশিষ্ট সাংবাদিক স্বপন দাসগুপ্তও।

বালাকোটে সার্জিকাল স্ট্রাইকের পর দেশ জুড়ে আলোড়ন তৈরি হয়েছে। বিরোধীরা দাবি করেছে বিজেপি এই ঘটনার রাজনৈতিক ফায়দা লোটার চেষ্টা করেছে। আবার বিজেপির পাল্টা দাবি, যেসব দল ভারতীয় বায়ুসেনার কৃতিত্ব সম্পর্কে সন্দেহ প্রকাশ করেছে – তারা যেন মেকি দেশভক্তি না দেখায়। শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী রিসার্চ ফাউন্ডেশনের তরফে অর্নিবাণ লাহিড়ি এবং রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদত সায়ন্তন বসু জানান, অনুষ্ঠানের প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে৷

– Advertisement –

কলকাতায় এসে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কী জবাব দেবেন – তা শোনার অপেক্ষায় রয়েছে বিজেপি নেতৃত্ব৷ কারণ বালাকোটে এয়ার সার্জিকাল স্ট্রাইকের পর নরেন্দ্র মোদী সরকারের ভূমিকা নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন করেছেন মমতা৷

শুক্রবার থেকে ফের বৃষ্টি রাজ্যে

কলকাতা: ফের বৃষ্টি হতে পারে রাজ্যে৷ আলিপুর আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, আগামী কয়েকদিনে তাপমাত্রা বাড়বে৷ ফলে বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকছে৷

এরই সঙ্গে যুক্ত হয়েছে পশ্চিমি ঝঞ্ঝা৷ যার জেরে বৃষ্টি হবে৷ ফলে আগামী শুক্রবার থেকেই এই বৃষ্টি শুরু হতে পারে৷ সপ্তাহান্তে তাই বৃষ্টির মুখ দেখতে পারে শহর কলকাতা সহ গোটা রাজ্য৷ আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, ফের পশ্চিমী ঝঞ্ঝা ও বঙ্গোপসাগরে বিপরীত ঘূর্ণাবর্তের সৃষ্টি হয়েছে৷

এর জেরে আকাশ আংশিক মেঘাচ্ছন্ন থাকবে৷ শুক্রবার থেকে বিক্ষিপ্তভাবে হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে৷ ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই৷

ভোটের জন্য পিছোচ্ছে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল

স্টাফ রিপোর্টার , কলকাতা: গত বছরের তুলনায় আগেই শুরু হয়েছে পরীক্ষা৷ তাই ফলাফল প্রকাশের কথাও ছিল আগে৷ কিন্তু লোকসভা ভোটের মুখে বদলে গেল সিদ্ধান্ত৷ ভোটের কারণে পিছিয়ে যাবে রাজ্যের মাধ্যমিক পরীক্ষার ফলাফল৷

উচ্চ মাধ্যমিকের ক্ষেত্রেও তাই। পিছিয়ে যাবে পরীক্ষা। জানা গেছে মধ্য শিক্ষা পর্ষদ ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ সূত্রে। সম্ভবত জুন মাসের আগে ফলাফল প্রকাশের সম্ভবনা নেই৷ শুধুমাত্র এই দুই গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষার ক্ষেত্রে নয় পরীক্ষা পিছোচ্ছে বিভিন্ন স্কুলেও। এপ্রিলে যে সমস্ত পরীক্ষা হবার কথা ছি্ল তা পিছিয়ে হয়ে যাচ্ছে ভোটের পর৷

বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের গুলিতেও পরীক্ষাও পিছোচ্ছে। কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়, বারাসাত বিশ্ববিদ্যালয়, গৌরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের মত বিদ্যালয় গুলিতে পিছিয়ে যাচ্ছে পরীক্ষা৷ সব মিলিয়ে ভোটের প্রভাব রাজ্যের সার্বিক শিক্ষা মহলে।

মহিলা ভোটাদাতায় রাজ্যে প্রথম যাদবপুর

শেখর দুবে, কলকাতা: লোকসভা নির্বাচনের বিউগল বাজিয়ে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন৷ ১১ এপ্রিল থেকে ১৯ মে গণতন্ত্রের সবচেয়ে বড় উৎসবে সামিল হবেন দেশের প্রায় ৯২ কোটি সাধারণ মানুষ৷ পশ্চিমবঙ্গে এবার মোট ভোটার ৬কোটি ৯৭লক্ষ ৬০হাজার ৮৬৮জন৷ যার মধ্যে মহিলা ভোটারের সংখ্যা ৩কোটি ৩৯লক্ষ ৭৫ হাজার ৯৭৯জন৷ রাজ্যের লোকসভা কেন্দ্র হিসেবে যাদবপুরেই রয়েছে সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মহিলা ভোটার৷

রবিবার সাংবাদিক সম্মেলনে নির্বাচন কমিশনের তরফে জানানো হয়েছে রাজ্যে সাতদফায় ভোট গ্রহন হবে৷ সপ্তম দফা(শেষ দফা) ১৯ মে যাদবপুর কেন্দ্রে ভোট দেবেন মোট ১৮লক্ষ ২হাজার ২৩৪জন ভোটার৷ যার মধ্যে ৮৯৯৬১১ জন মহিলা ভোট দেবেন ওই দিন৷ সারা রাজ্যে মহিলা ভোটারদের সংখ্যায় শীর্ষস্থানে রয়েছে যাদবপুরই৷ যেখানে এই কেন্দ্রে পুরুষ ভোটার রয়েছে ৯লক্ষ ২হাজার ৫৪৯জন৷ বরাবর নিজেদের ব্যতিক্রমী প্রমাণ করে আসা যাদবপুর মহিলা ভোটারের ক্ষেত্রেও রাজ্যের বাকি কেন্দ্রগুলিকে ছাপিয়ে গিয়েছে৷

একনজরে, সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচন-২০১৯
রাজ্যের প্রথম পাঁচটি জেলা যেখানে মহিলা ভোটার সবার্ধিক

– Advertisement –

১- যাদবপুর- ৮৯৯৬১১ জন
২- ঘাটাল-৮৭৫৯৭৩ জন
৩- হুগলি- ৮৭৩৭১৪ জন
৪- কোচবিহার- ৮৬৮৬৩২ জন
৫- শ্রীরামপুর- ৮৬৭০৬৫ জন

রাজ্যের লোকসভা কেন্দ্র গুলির মধ্যে সবচেয়ে কম মহিলা ভোটার রয়েছে উত্তর কলকাতা কেন্দ্রে৷ এই লোকসভা কেন্দ্রটিতে ৬লক্ষ ৪৬হাজার ৫৯০জন মহিলা ভোটদাত্রী রয়েছেন৷ প্রসঙ্গত রবিবার সাংবাদিকদের সঙ্গে বৈঠকে নির্বাচন কমিশন জানায় সুষ্ঠ ভোট করতে বদ্ধপরিকর তারা৷

ইভিএমে কোনরকম দুর্নীতি রুখতে এবং ভোটারদের সুবিধার্থে নতুন ব্যবস্থা হিসেবে প্রার্থীর ছবি থাকবে৷ এমনটাই জানানো হয় নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে৷ এই ব্যবস্থার ফলে বয়স্ক এবং প্রত্যন্ত গ্রামের বয়স্ক ভোটারদের ভোটদানে সুবিধা হবে৷ পাশাপাশি রাত দশটা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত লাউড স্পিকার ব্যান।

সার্ফ এক্সেলের বিজ্ঞাপন সম্প্রীতি নয়, বিভাজনের কথাই বলছে : মন্দাক্রান্তা

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা : দোল উৎসব নিয়ে সার্ফ এক্সেলের বানানো একটি বিজ্ঞাপন নিয়ে সরগরম সোশ্যাল মিডিয়া৷ বিজ্ঞাপনটিতে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি দেখাতে গিয়ে আদপে বিভাজনের কথাই বলা হয়েছে, এমনটাই মনে করছেন বাংলাভাষার স্বনামধন্যা কবি মন্দাক্রান্তা সেন৷

বাংলা কবিতার এই সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং প্রতিবাদি কবি সুবোধ সরকার বিজ্ঞাপনটি নিয়ে বলেন, ‘‘দোল একটি উৎসব৷ রবীন্দ্রনাথ বলেছিলেন রঙ যেন মর্মে লাগে৷ আমি বলব দোলের রঙ যেন ধর্মে না লাগে৷’’

– Advertisement –

দোল উৎসব নিয়ে বানানো সার্ফ এক্সেলের ভিডিওটি সামনে আসার পরই সোশ্যাল মিডিয়াতে ‘ব্যান সার্ফ এক্সেল’ ট্রেন্ডিং শুরু হয়েছে৷ সার্ফ এক্সেলের অফিসিয়াল ফেসবুকে ভিডিওটি পোস্ট করা হলে সেখানেও নিজেদের প্রতিবাদ জানিয়েছেন প্রচুর ফেসবুক ইউজার৷ কিন্তু বিরোধটা কোথায়? কী এমন রয়েছে এই ভিডিওতে?

ভিডিওটিতে একটি গল্প বলা হয়েছে৷ দোলের দিন সকালে কিছু বাচ্চা ছেলেমেয়ে দোল খেলতে শুরু করছে৷ হঠাৎ একটি বাচ্চা মেয়ে সাইকেলে এসে সবাইকে উৎসাহ দেয় তাকে রঙ মাখাতে৷ দুদিকের ছাদের বারান্দায় দাঁড়িয়ে থাকা ছেলেমেয়েরা ওই সাইকেলে থাকা মেয়েটির উপর রঙ ভর্তি বেলুন ও পিচকারির রঙ ছুঁড়ে শেষ করে ফেলে৷ ঠিক তখন সেই বাচ্চা মেয়েটি একটি বাচ্চা ছেলেকে বাড়ি থেকে ডেকে বার করে যে নামাজ পড়তে যাওয়ার জন্য সাদা জামা পরে তৈরি ছিল৷ সাইকেলের বাচ্চা মেয়েটি এরপর এই মুসলিম শিশুটিকে মসজিদ অবধি পৌঁছে দেয়৷

এই বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে পরোক্ষভাবে দেখানো হয়েছে দোল উৎসবে মুসলমানদের অসুবিধা হয়, এমনটাই অভিযোগ সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারকারীদের একাংশের৷ তাদের প্রশ্ন দোলের রঙে আল্লার ইবাদতে অসুবিধে কেন হবে?

ভিডিও দেখার পর মন্দাক্রান্তা সেন, সুবোধ সরকারের মতো কবি তাঁদের মতো করে বিষয়টিকে বর্নণা করেছেন৷ মন্দাক্রান্তার বক্তব্য, ওদের বিজ্ঞাপনের ট্যাগ লাইন, ভালো কাজের জন্য হলে দাগ ভালো৷ তাই যদি হবে তাহলে ওইটুকু শিশুটিকে রঙের দাগ বাঁচিয়ে নামাজ পড়তে যেতে হবে কেন৷ দোল একটি উৎসব, এর সঙ্গে ধর্মের তেমন সরাসরি যোগাযোগ নেই৷ এই বিজ্ঞাপনটি কি শৈশবেই দুটি শিশুর মধ্যে আলাদা করে ধর্মের বিভেদ ঢুকিয়ে দিচ্ছে না? পুরো বিজ্ঞাপনটিতেই বিষয়বস্তুর মধ্যে স্ববিরোধিতা রয়েছে৷ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি দেখাতে গিয়ে আদপে বিভাজনের কথাই বলা হয়েছে এই বিজ্ঞাপনটিতে৷

মঙ্গলবারই তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রবিবার জাতীয় নির্বাচন কমিশন সাংবাদিক সম্মেলন করে ঘোষণা করেছে ভোটের নির্ঘন্ট৷ সাত দফায় হবে ভোট৷ ১১ এপ্রিল ১৯ মে পর্যন্ত চলবে ভোট পর্ব৷।

আর ভোটের দিনক্ষণ ঘোষণার পরই তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ১২ সদস্যের নির্বাচনী কমিটির বৈঠক ডাকলেন। মঙ্গলবার কালীঘাটে বৈঠকে বসবেন দলের শীর্ষ নেতৃত্ব। সূত্রের খবর, সেই বৈঠকের পরই তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করবেন দলনেত্রী।

গত সপ্তাহেই তৃণমূল কংগ্রেসের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় দলনেত্রীর নির্দেশে ১২ জন শীর্ষ নেতৃত্বেকে নিয়ে নির্বাচনী কমিটি গঠন করেন। নির্বাচনের সমস্ত কাজকর্ম দেখাশুনা করবেন ওই কমিটির সদস্যরা৷

– Advertisement –

বিস্তারিত আসছে….

আজ রাজনৈতিক দলগুলিকে নির্বাচনী আচরণবিধি শেখাবে কমিশন

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আজ, সোমবার সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলির সঙ্গে বৈঠকে বসছে রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী অফিসার (সিইও)৷ বেলা তিনটে থেকে বৈঠক শুরু হওয়ার কথা৷ এই বাঠকে ‘মডেল কোড অব কন্ডাক্ট’ বা আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধি নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলিকে পাঠ দিতে পারে রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী অফিসার (সিইও)-এর দফতর।

রবিবার বিকেলে নয়াদিল্লির বিজ্ঞান ভবনে সাংবাদিক বৈঠক করে ভোটের দিন ঘোষণা করেছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা।

– Advertisement –

ভোটের সবিস্তার দিনক্ষণ ঘোষণার পরেই নিয়ম অনুযায়ী দেশ জুড়ে ‘মডেল কোড অব কন্ডাক্ট’ বা আদর্শ নির্বাচনী আচরণবিধি বলবৎ হয়েছে। এই ব্যাপারে বৈঠক করতে সব রাজ্যকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে কমিশনের খবর।

পড়ুন: শতাংশের বিচারে সবচেয়ে বেশি মহিলা প্রার্থী তালিকার শীর্ষে ছত্তিসগড়

পশ্চিমবঙ্গে সাত দফায় নির্বাচন হবে৷ প্রথম দফার নির্বাচন হবে ১১ এপ্রিল। তার আগে ভোটকর্মীদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। এ রাজ্যে সেই প্রশিক্ষণ শুরু হচ্ছে ২৩ মার্চ থেকে। আজ ভোটকর্মীদের প্রশিক্ষণের বিষয়ে বিভিন্ন জেলার ভারপ্রাপ্ত ভোটকর্তা ও কর্মীদের সঙ্গে ভিডিয়ো-সম্মেলন রয়েছে সিইও দফতরের।

ভোটে বাসের ব্যবস্থা করতে আজ বৈঠক, ভাড়া বৃদ্ধির দাবি মালিকদের

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ভোটে বাসের রিক্যুইজিশন নিয়ে বাস মালিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসতে চলেছেন পাবলিক ভেহিকল ডিপার্টমেন্ট (পিভিডি)৷ আজ, সোমবার বেলা ২.৩০ মিনিটে বেলতলায় পিভিডির দফতরে এই বৈঠক হবে৷ লোকসভা নির্বাচনে যাতে পর্যাপ্ত বাসের আয়োজন করা যায়, তার প্রস্তুতি নিতেই মালিক সংগঠনগুলিকে বৈঠকে ডাকা হয়েছে।

এদিকে, ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে এদিনই নির্বাচন কমিশন ও পরিবহণ সচিবকে চিঠি দেবে জয়েন্ট কাউন্সিল অব বাস সিন্ডিকেট৷

পড়ুন: মোদীর বায়োপিকে শ্যুটিং করতে গিয়ে দুর্ঘটনায় আহত বিবেক ওবেরয়

– Advertisement –

জয়েন্ট কাউন্সিল অব বাস সিন্ডিকেটের সাধারণ সম্পাদক তপন বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, প্রশাসন প্রতিবারই ভোটে বাস নেয়৷ বাস দিতে আমাদের কোনও অসুবিধে নেই৷ এবারও দেওয়া হবে। কিন্তু, বাসের ভাড়া বাড়ানো দরকার। অন্যান্য রাজ্যের সঙ্গে সমতা রেখে ভাড়া ঠিক করতে হবে।

ভাড়ার ৭৫ শতাংশ টাকা বাসের রিপোর্টিংয়ের সময়ে মিটিয়ে দিতে হবে। বাকি টাকা বিল জমা দেওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে দিতে হবে। আর যে জেলার বাস সেই জেলাতেই চালাতে হবে৷ কলকাতার বাস দার্জিলিংয়ে কিংবা হাওড়ার বাস মুর্শিদাবাদে চালালে হবে না৷

পড়ুন: ‘ভবিষ্যতের ভূত’ প্রদর্শনের দাবিতে পথে সৌমিত্র অপর্ণারা

ইতিমধ্যেই ভোটের জন্য নেওয়া বাসের ভাড়া বৃদ্ধির দাবি নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিয়েছে অল বেঙ্গল বাস-মিনিবাস সমন্বয় সমিতি। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক রাহুল চট্টোপাধ্যায় বলেন, বাস চালানোর খরচ আগের তুলনায় বেড়ে গিয়েছে।

বর্তমানে ভোটের জন্য সাধারণ বাসের এক দিনের ভাড়া ১৯১০ টাকা। তা বাড়িয়ে ৩,৫০০ টাকা করার দাবি জানানো হয়েছে। বর্তমানে ভোটের জন্য দেওয়া মিনিবাসের ভাড়া দৈনিক ১৫৮০ টাকা। তা বাড়িয়ে ৩ হাজার টাকা করার দাবি করা হয়েছে।

রমজানের মধ্যে ভোটের দিন বিবেচনার আর্জি সোমেন মিত্রর

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: রমজান মাসের মধ্যে ভোটের দিনগুলি বিবেচনা করার জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে আর্জি জানালেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র৷ রবিবার ভোটের দিন ঘোষণা হওয়ার পরই তিনি একটি প্রেস বিবৃতি দেন। সেখানে লেখা হয়েছে, আজ ভারতের নির্বাচন কমিশন ১৭ তম লোকসভা নির্ঘণ্ট ঘোষণা হয়েছে।

নির্বাচন কমিশনের কাছে আমাদের আবেদন সাধারণ মানুষ যাতে নির্বিঘ্নে, নির্ভয়ে তাঁদের মতাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন, সে ব্যাপারকে কমিশনের পক্ষ থেকে নিশ্চিত করতে হবে।

আগামী ৫ মে’২০১৯ থেকে ‘রমজান ‘ মাস শুরু হচ্ছে।আমরা লক্ষ্য করলাম নির্বাচন কমিশনের বিজ্ঞপ্তি অনুসারে ‘রমজান’ মাসের মধ্যেই লোকসভা নির্বাচনের তিনটি পর্ব অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। যেহেতু ‘রমজান’ মাসে একটি বৃহৎ জনগোষ্ঠী তাঁদের বিশেষ ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠানে নিযুক্ত থাকেন, তাই বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্রে সকলের অংশগ্রহণ সুনিশ্চিত করতে,’রমজান’ মাসের ভিতর নির্বাচনের দিনক্ষণগুলি বিবেচনারও আবেদন রাখছি আমরা।

– Advertisement –

রবিবার বিকেলে নয়াদিল্লির বিজ্ঞান ভবনে সাংবাদিক বৈঠক করে এই ঘোষণা করলেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা। তিনি জানান, গোটা দেশে মোট সাত দফায় ভোট গ্রহণ হবে লোকসভা নির্বাচনে। বাংলাতেও ওই সাত দফাতেই ভোট গ্রহণ করবে কমিশন।

প্রথম দফায় ভোট দু’টি আসনে, দ্বিতীয় দফায় ভোট তিনটি আসনে, তৃতীয় দফায় ভোট পাঁচটি আসনে, চতুর্থ দফায় ভোট আটটি আসনে, পঞ্চম দফায় ভোট সাতটি আসনে, ষষ্ঠ দফায় ভোট আটটি আসনে এবং সপ্তম দফায় ভোট হবে ন’টি আসনে।