সেনাপ্রধানকে ‘গুণ্ডা’ বললেন রাহুল: স্মৃতি

নয়াদিল্লি: লোকসভা নির্বাচনের নির্ঘণ্ট  ঘোষণার পর থেকেই শুরু হয়ে গিয়েছে প্রচার। একই সঙ্গে শুরু হয়ে গিয়েছে রাজনৈতিক দলের নেতাদের আক্রমণ এবং প্রতিআক্রমণ। সেই সঙ্গে নেতাদের বক্তব্য নিয়েও শুরু হয়েছে তরজা।

ভোট ঘোষণার পরের দিনেই কর্মীসভায় গিয়ে বেফাঁস মন্তব্য করে ফেলেছেন রাহুল গান্ধী। সেই নিয়ে খুব স্বাভাবিকভাবেই তাঁকে আক্রমণ করতে শুরু করেছেন বিরোধী বিজেপির নেতারা।

দিল্লিতে কংগ্রেস কর্মী সমর্থকদের সম্বোধন করতে গিয়ে রাহুল গান্ধী এয়ারস্ট্রাইকের জবাবের বিষয় নিয়ে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালকে নিশানা করতে গিয়ে মুখ ফসকে মাসুদ আজহারকে ‘মাসুদ জি’ বলে সম্বোধন করেন৷ ভোটের মুখে হাতে এমন গরম ইস্যু পেয়ে তার উপযুক্ত ব্যবহার করল বিজেপি৷

এই বিষয়ে স্মৃতি ইরানি বলেছেন, “একজন সন্ত্রাসবাদীকে রাহুল গান্ধী সম্মান দিচ্ছেন। সমগ্র দেশ এটা দেখে স্তম্ভিত। জঙ্গি হানায় শহদ এবং আক্রান্তদের পরিবার জানতে চাইছে কেন উনি একজন জঙ্গিনেতাকে সম্মান দিচ্ছেন?” একই সঙ্গে তিনি আরও বলেন, “”

বিস্তারিত আসছে…।

সেনাপ্রধানকে ‘গুণ্ডা’ বললেন রাহুল: স্মৃতি

নয়াদিল্লি: লোকসভা নির্বাচনের নির্ঘণ্ট  ঘোষণার পর থেকেই শুরু হয়ে গিয়েছে প্রচার। একই সঙ্গে শুরু হয়ে গিয়েছে রাজনৈতিক দলের নেতাদের আক্রমণ এবং প্রতিআক্রমণ। সেই সঙ্গে নেতাদের বক্তব্য নিয়েও শুরু হয়েছে তরজা।

ভোট ঘোষণার পরের দিনেই কর্মীসভায় গিয়ে বেফাঁস মন্তব্য করে ফেলেছেন রাহুল গান্ধী। সেই নিয়ে খুব স্বাভাবিকভাবেই তাঁকে আক্রমণ করতে শুরু করেছেন বিরোধী বিজেপির নেতারা।

দিল্লিতে কংগ্রেস কর্মী সমর্থকদের সম্বোধন করতে গিয়ে রাহুল গান্ধী এয়ারস্ট্রাইকের জবাবের বিষয় নিয়ে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালকে নিশানা করতে গিয়ে মুখ ফসকে মাসুদ আজহারকে ‘মাসুদ জি’ বলে সম্বোধন করেন৷ ভোটের মুখে হাতে এমন গরম ইস্যু পেয়ে তার উপযুক্ত ব্যবহার করল বিজেপি৷

এই বিষয়ে স্মৃতি ইরানি বলেছেন, “একজন সন্ত্রাসবাদীকে রাহুল গান্ধী সম্মান দিচ্ছেন। সমগ্র দেশ এটা দেখে স্তম্ভিত। জঙ্গি হানায় শহদ এবং আক্রান্তদের পরিবার জানতে চাইছে কেন উনি একজন জঙ্গিনেতাকে সম্মান দিচ্ছেন?” একই সঙ্গে তিনি আরও বলেন, “”

বিস্তারিত আসছে…।

ভোটে দাঁড়াতে অনিচ্ছুক মনমোহন

অমৃতসর: কংগ্রেসের আবেদনের পরেও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং লোকসভা নির্বাচনে এবার দাঁড়াতে চাইছেন না বলেই সুত্রের খবর৷ পঞ্জাবের অমৃতসর থেকে এবার লোকসভার নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারেন বলে জানা গিয়েছিল৷

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীকে অমৃতসর থেকে লোকসভা নির্বাচন লড়ার জন্য আবেদন জানিয়েছিল কংগ্রেস৷ ভোট দাঁড়ানো এড়াতেই তিনি শারীরিক অসুস্থতার দোহাই দিয়েছিলেন বলে সংবাদমাধ্যমের খবর৷ পঞ্জাব সহ পুরো দেশে রাজনৈতিক লাভ-কে মাথায় রেখে তাঁকে পঞ্জাব থেকে লোকসভায় প্রতিদ্ধন্ধিতা করতে বলা হয়েছিল৷

রবিবার রাতে পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দ্র সিং এবং ওই রাজ্যের কংগ্রেস অধ্যক্ষ সুনিল জাখড় প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ডঃ মনমোহন সিং-এর সঙ্গে প্রায় আধ ঘন্টা বৈঠক করেন৷ এই বৈঠকেই তাঁর কাছে আবেদন করা হয় যাতে তিনি পঞ্জাব থেকে এবারের লোকসভা নির্বাচনে দাড়ান৷

– Advertisement –

পঞ্জাব কংগ্রেসের শীর্ষ নেতাদের মতে অধ্যক্ষ সুনীল জাখড় মনে করছিলেন এই সীট থেকে দাঁড়ালে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী খুব সহজেই জিততে পারতেন৷ অমৃতসরেই প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর বাসস্থান৷ পঞ্জাবের মোট ১৩টি লোকসভা সীটের মধ্যে অমৃতসর সব থেকে গুরুত্বপুর্ণ সীট বলে মনে করা হয়৷ ২০০৪ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত বিজেপির হয়ে নভজোত সিং সিধু এই লোকসভা থেকে বিজেপির সাংসদ ছিলেন৷ তবে বিতর্কে জড়িয়ে তাঁর বদলে এই জায়গা অরুণ জেটলী কে দেওয়া হয়৷

লোকসভা নির্বাচনের আগে ফের নোটবন্দি নিয়ে বিতর্কে মোদী সরকার

নয়াদিল্লি: ২০১৬ সালের নভেম্বর মাসে মোদী সরকার নোটবন্দির ঘোষণা আরবিআই এর মত ছাড়াই করেছিল৷ ডেক্কন হেরাল্ড সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী আরটিআই থেকে পাওয়া তথ্য এমনই বলছে৷ রিপোর্টটিতে বলা হয়েছে আরবিআই বোর্ডের বৈঠক নোটবন্দির ঘোষণার ঠিক আঢ়াই ঘন্টা আগে বিকেল সাড়ে পাঁচটায় হয়েছিল৷ বোর্ডের মতামত পাওয়ার আগেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী নোটবন্দির ঘোষণা করে দেন৷

এই সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী আরবিআই ১৬ই ডিসেম্বর ২০১৬ সালে সরকারের প্রস্তাবে মত দিয়েছিল৷ তার মানে ঘোষণার ৩৮ ঘন্টা পর আরবিআই এই মত দেয়৷ আরটিআই এক্টিভিস্ট ভেঙ্কটেশ নায়ক যে তথ্য তুলে ধরছেন সেই তথ্যে আরও গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উল্লেখ করা রয়েছে৷ এই তথ্য অনুযায়ী অর্থ দফতরের প্রস্তাবের একাধিক বিষয়ে আরবিআই বোর্ড সহমত ছিল না৷

অর্থ মন্ত্রকের অনুযায়ী ৫০০ এবং১০০০ টাকার নোটে ৭৬% এবং ১০৯% এর দরে বারছিল যেখানে অর্থব্যবস্থা ৩০% এর দরে বাড়ছিল৷ এই বিষয়ে আরবিআই এর মত ছিল মুদ্রাস্ফিতি কে মাথায় রেখে এই অন্তর খুবই কম৷ আরবিআই এর মত ছিল কালো টাকা নগদের থেকে অনেক বেশি সোনা বা সম্পত্তির রুপে রয়েছে৷ আর নোটবন্দির প্রভাব কালো ব্যাবসায় খুবই কম পরবে বলে মনে করছিল আরবিআই৷ শুধু তাই নয় আরবিআই এর মতে নোটবন্দীর প্রভাব অর্থব্যবস্থার উপর খারাপ প্রভাব পরবে৷

– Advertisement –

এই তথ্য সামনে আসার পর আরও একবার নোটবন্দি কে ঘিরে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে প্রশ্ন উঠতে পারে৷ যেখানে মোদী সরকার নোটবন্দী কে তাদের উপলব্ধি হিসেবে দেখাচ্ছে সেখানেই এবার নোটবন্দি কে ঘিরে মোদী সরকার এবং আরবিআই এর ভিন মতের কথা প্রকাশ্যে আসছে৷ মনে করা হচ্ছে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে নোটবন্দি এবং জিএসটি কে দুই পক্ষই হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করবে৷ তবে আরটিআই থেকে এই তথ্য প্রকাশ্যে আসায় ফের মোদী সরকার কে বিতর্কের মুখে পড়তে হবে বলে মনে করছে বিভিন্ন মহল৷

জম্মু-কাশ্মীরে বিধানসভা ভোট না হওয়ায় বিজেপিকে বিঁধছে বিরোধীরা

নয়াদিল্লি: সিকিম, ওডিশা, অন্ধ্রপ্রদেশ ও অরুনাচল৷ এই চার রাজ্যে লোকসভার সঙ্গেই বিধানসভা ভোটের দিন ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন৷ তবে জম্মু কাশ্মীরে ভোট হচ্ছে না এখনই৷ জানিয়ে দিয়েছে কমিশন৷ আর কমিশনের এই সিদ্ধান্তের বিরোধীতায় সরব মায়াবতী থেকে মেহেবুবা মুফতি৷ ওমর আবদুল্লাও কমিশনের বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন উপত্যকায় বিধানসভা ভোট না হওয়ার জন্য৷

ভোট ঘোষণায় কেন দেরি হচ্ছে? কমিশনের কাছে এই প্রশ্ন তুলেছিল বিরোধী শিবিরের বহু দল৷ বিজেপিকে ফায়দা দিতেই কমিশনের এই পদক্ষেপ বলে অভিযোগ ছিল তাদের৷ এইবার লোকসভার সঙ্গে উপত্যাকায় বিধানসভা ভোট না করার জন্য নিন্দায় মুখর গেরুয়া শিবির বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি৷ কমিশনের যুক্তি, নিরাপত্তার কারণে আপাতত সেকানে দুটি ভোট একযোগে করা যাবে না৷

আরও পড়ুন: জম্মু কাশ্মীরের ভোটের জন্য তিন বিশেষ পর্যবেক্ষক

– Advertisement –

রবিবার দেশের লোকসভা ভোটের নির্ঘন্ট প্রকাশ করা হয়৷ জম্মু-কাশ্মীরে ভোট হচ্ছে না জানতে পেরেই প্রথমেই কমিশনের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেন বিএসপি নেত্রী মায়াবতী৷ ভোট না হওয়ায় বিজেপির বিরুদ্ধেও সরব হন তিনি৷ ট্যুইটে তিনি লেখেন, লোকসভার সঙ্গে জম্মু-কাশ্মীরের বিধানসভা ভোটকে অস্বীকার করা হয়েছে৷ যা মোদী সরকারের কাশ্মির নীতির ব্যর্থতার ইঙ্গিত। নিরাপত্তা বাহিনী অত্যন্ত পারদর্শী উভয় ভোট এক সঙ্গে করার জন্য। কেন্দ্রের যুক্তি খামতিভরা ও বিজেপি-র শিশুসূলভ অজুহাত মাত্র৷

বিজেপির সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন হওয়াতেই রাষ্ট্রপতি শাসন জারি হয়েছে জম্মু-কাশ্মীরে৷ প্রায় মাস ছয়েক অতিক্রান্ত৷ এই পরিস্থিতিতে রাজ্যবাসীর দ্বারা নির্বাচিত সরকারের দবি উঠছে ওই উপত্যাকাজুড়ে৷ ভোট ঘোষণার পরপরই ট্যুইট করেন রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি৷ তিনি লেখেন, এই গণতন্ত্র জনগণকে সরকার নির্বাচনে অংশগ্রহণের অনুমতি দেয় না৷ কেন্দ্র সময় চুরি করছে মানুষের গনতান্ত্রিক অধিকার ঠেকিয়ে রাখার জন্য৷

আরও পড়ুন: পুলওয়ামাকাণ্ডের আরেক মাথা ২৩ বছরের মুদাসির ছিল ইলেকট্রিশিয়ান

প্রায় একই সুর ওমর আবদুল্লাহের গলাতেও৷ মোদীকে বিঁধে তাঁর ট্যুইট, ৫৬ ইঞ্চির ছাতি ফেল করেছে৷ প্রধানমন্ত্রী পাকিস্তান, জঙ্গি ও হুরিয়ত নেতাদের কাছে আত্মসমর্পণ করেছেন৷ সাবাস মোদী৷

দেশে লোকসভার তরজা৷ তার মধ্যে অন্য মাত্রা পাচ্ছে জম্মু-কাশ্মীরের বিদানসভা ভোট না হওয়ার বিষয়টি৷

প্রধানমন্ত্রীর দৌড়ে থাকছেন না গডকড়ী

নয়াদিল্লি: প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে তিনি নেই। প্রধানমন্ত্রী হওয়ার কোনরকম স্বপ্নও তিনি দেখছেন না। রবিবার এমনটাই দাবি করেছেন নিতিন গডকড়ী৷ পাশাপাশি তাঁর বক্তব্য, আরএসএসেরও কোনও পরিকল্পনা নেই তাঁকে ওই পদে বসানোর৷

প্রসঙ্গ বেশ কিছু ইস্যুর জন্য সমালোচনার মুখে পড়তে দেখা যাচ্ছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে৷ ফলে নানা মহলে জল্পনা শুরু হয়েছিল নিতিন গডকড়ীকে নিয়ে৷ কিন্তু এদিন সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জানিয়ে দেন, তিনি কোনও ভাবেই প্রধানমন্ত্রীর দৌড়ে নেই৷ তাঁর বক্তব্য, তিনি কখনও কোনও অঙ্ক কষে চলেননি৷ তিনি যে কাজের দায়িত্ব পেয়েছেন , তা-ই পালন করেছেন।

– Advertisement –

বর্তমানে এই মোদী সরকারের সড়ক পরিবহণ, জাতীয় সড়ক, জাহাজ এবং জলসম্পদ মন্ত্রীর দায়িত্বে গডকড়ী। যদিও সম্প্রতি নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহ নেতৃত্বের বিরুদ্ধে এই নিতিন গডকড়ীকে প্রকাশ্যেই অনাস্থা দেখাতে দেখা যাচ্ছিল। পাশপাশি সঙ্ঘ পরিবারের তরফেও যেন তাঁকে পিঠ চাপড়ানো হচ্ছিল যাতে জল্পনা দানা বাঁধে নিতিন যেন পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী পদপ্রার্থী৷ অন্যদিকে শাসক শিবিরে এই কোন্দলকে উঁসকে দিতে বিরোধী জোটের নেতা নেত্রীরা আওয়াজ তোলেন বিজেপি গডকড়ীকে কম গুরুত্ব দিচ্ছে বলে৷

তবে বিরোধীদের ইন্ধনে এবার যেন জল ঢেলে দিলেন নিতিন গডকড়ী কারণ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বের উপরেও দল তথা তাঁর সম্পূর্ণ আস্থা রয়েছে বলে এদিন বার্তা দিয়েছেন তিনি৷ উল্টে লোকসভা ভোটের আগে বিরোধী জোটের মহাগঠবন্ধনকেও কটাক্ষ করতেও দেখা গিয়েছে এদিন তাঁকে৷

পশ্চিমবঙ্গের কবে কোথায় ভোট

নয়াদিল্লি: শেষবারের লোকসভা নির্বাচনের থেকে দুদিন বেড়ে মোট সাত দফায় ভোট রাজ্যে৷ সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গে ভোট শুরু ১১ এপ্রিল৷ রাজ্যে ভোট দান পর্ব শেষ হচ্ছে ১৯ মে৷ ২৩ মে সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের ফল ঘোষণা৷
২০১৯ সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের সূচী পশ্চিমবঙ্গে:-

প্রথম দফায় ভোট ১১ এপ্রিল
২টি আসনে ভোট
১-আলিপুরদুয়ার
২-কোচবিহার

২য় দফায় ভোট ১৮ এপ্রিল
৩টি আসনে ভোট
১-দার্জিলিং
২-রায়গঞ্জ
৩-জলপাইগুড়ি

– Advertisement –

৩য় দফায় ভোট ২৩ এপ্রিল
৫টি আসনে
১-মালদা উত্তর
২-মালদা দক্ষিণ
৩-বালুরঘাট
৪-মুর্শিদাবাদ
৫-জঙ্গিপুর

৪র্থ দফায় ভোট ২৯ এপ্রিল
৮টি আসনে
১-কৃষ্ণনগর
২-রাণাঘাট
৩-বর্ধমান পূর্ব
৪- বর্ধমান দূর্গাপুর
৫-আসানশোল
৬-বহরমপুর
৭-বোলপুর
৮- বহরমপুর

৫ম দফায় ভোট ৬ মে
৭টি আসনে
১-বনগাঁ
২-ব্যারাকপুর
৩-আরামবাগ
৪-হাওড়া
৫-উলুবেড়িয়া
৬-শ্রীরামপুর
৭-হুগলি

৬ষ্ঠ দফায় ভোট ১২ মে
৮টি আসনে
১- ঘাটাল
২- ঝাড়গ্রাম
৩-বিষ্ণুপুর
৪-বাঁকুড়া
৫-মেদিনীপুর
৬-পুরুলিয়া
৭-তমলুক
৮-কাঁথি

৭ম দফায় ভোট ১৯ মে
৯টি আসনে ভোট
১- দমদম
২-বারাসত
৩-বসিরহাট
৪-যাদবপুর
৫-কলকাতা দক্ষিণ
৬-কলকাতা উত্তর
৭-জয়নগর
৮-মথুরাপুর
৯-ডায়মন্ডহারবার

ভোট শান্তিপূর্ণ করতে একাধিক পদক্ষেপ কমিশনের

নয়াদিল্লি: সপ্তদশ লোকসভা ভোটের দিন ঘোষণা হয়ে গিয়েছে৷ লাগু হয়েছে আদর্শ আচরণবিধি৷ গণতন্ত্রের উৎসবের সামিল হবে প্রায় ৯০ কোটি দেশবাসী৷ ভোট আবাধ ও সুষ্ঠু করতে বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ করেছে নির্বাচন কমিশন৷ যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল…..

গতবার যেখানে ছিল প্রায় ৯ লক্ষ পোলিং বুথ, সেখানে এবার গোটা দেশে তার সংখ্যা থাকবে ১০ লক্ষ৷
ইভিএমের সঙ্গেই ব্যবহার হবে ভিভিপ্যাট৷ প্রতিটি পোলিং স্টেশনেই ভোটারদের জন্য থাকবে ভিভিপ্যাটের বন্দোবস্ত৷

মুখ্য নির্বাচন কমিশনার জানিয়েছেন ভোটে দেওয়ার জন্য থাকবে প্রয়োজনীয় সংখ্যায় বুথ। প্রয়োজনে সময়ের আগে খোলা হবে ভোট গ্রহণ কেন্দ্র৷ প্রকৃতি বিরূপ হলেও ভোটকেন্দ্র খুলবে কমিশন।

– Advertisement –

সুষ্ঠু ভোটের স্বার্থে এবারও কড়া কন্ট্রোল রুম ও পর্যবেক্ষণ ব্যবস্থা চালু রাখছে কমিশন। প্রচুর সংখ্যায় আধা সামরিক বাহিনী মোতায়েন থাকবে৷ সংবেদনশীল কেন্দ্রগুলিতে রুট মার্চ করবে আধা সামারিক বাহিনী৷ স্পর্শকাতররাজ্যে পাঠানো হবে বিশেষ পর্যবক্ষক৷ ভোটের কাজে অভিজ্ঞ সরকারি আধিকারীকরাই এই কাজ করবেন৷

কর্ণাটকে এই পদ্ধতির প্রয়োগ হয়েছিল পরীক্ষামূলকভাবে৷ এবার যা লাগু হবে দেশজুড়ে৷ আদর্শ আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ অ্যাপের মাধ্যমে জানাতে পারবেন ভোটাররা। নাম ও ভোট সংক্রান্ত অন্যান্য নথি দিয়ে অভিযোগ জানালে ১০০ মিনিটের মধ্যেই পদক্ষেপ করতে বাধ্য হবে কর্তৃপক্ষ। এক্ষেত্রে ভোটারদের ভয়ের কিছু নেই৷ অভিযোগকারী ভোটারের নাম গোপন রাখবে কমিশন৷

প্রচারে রাত ১০টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত মাইক ব্যবহার করা যাবে না। পরিবেশের পক্ষে ক্ষতিকারক এমন জিনিস ব্যবহার না করে প্রচারের জন্য রাজনৈতিক দলগুলির কাছে আবেদন করেছে কমিশন।

প্রত্যন্ত অঞ্চলে পথ নাটক, মেলায় প্রচার চলবে। কমিউনিটি রেডিও মাধ্যমেও ভোটারদের কাছে পৌঁছবে কমিশন।

দেশজুড়ে আগামী আগামী ১১ই এপ্রিল থেকে ১৯শে মে পর্যন্ত লোকসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে৷ সাত দফায় হবে ভোট৷ প্রতিটি দফায় শান্তিপূর্ণ ভোটেই লক্ষ্য কমিশনের৷

দেশে তৈরি AK 203 হামলা চালাতে প্রস্তুত : নির্মলা সীতারমণ

নয়াদিল্লি: দেশের সেনাবাহিনীর হাতে উঠতে চলেছে অত্যাধুনিক AK 203 রাইফেল৷ উত্তরপ্রদেশের আমেঠিতে তৈরি সম্পূর্ণ দেশীয় প্রযুক্তির এই রাইফেল নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রতিক্রিয়া দিলেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ৷

শনিবার এক ফেসবুক পোস্টে তিনি বলেন এটি অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে তৈরি ইনসাস রাইফেল, যা সেনাবাহিনীকে আরও শক্তিশালী করবে৷ সেনার দক্ষতাকে আরও কয়েকগুণ বাড়িয়ে তুলতে ইন্ধন যোগাবে৷ এই রাইফেলের বেশ কিছু বৈশিষ্ট্য তুলে ধরেছেন তিনি৷ তাঁর মতে এই AK-203 রাইফেলটি কালাশনিকভ সিরিজের রাইফেলের আধুনিক সংস্করণ৷

– Advertisement –

অত্যাধুনিক এই রাইফেলের প্রযুক্তি পেতে ভারতের সঙ্গে রাশিয়ার চুক্তিও হয়েছে৷ চুক্তি অনুসারে ভারতে প্রায় ৭ লক্ষ ৫০ হাজার রাইফেল তৈরি হবে। এবং এই রাইফেল তৈরি হচ্ছে আমেঠিতে৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এর আগে জানান, AK-203 আমেঠির নতুন পরিচয় তৈরি করবে৷ AK-203 রাইফেল তৈরি হওয়ার পর AK সিরিজের বিগত মডেলের রাইফেলগুলি সেনার কাছ থেকে নিয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ সেই পুরোন মডেলের রাইফেল পাবেন আধা সেনা জওয়ানরা৷

AK 203 রাইফেলটি সম্পর্কে বলা হয়েছে এর থেকে মিনিটে ৬০০ রাউন্ড গুলি চলবে৷ অর্থাৎ প্রতি সেকেন্ডে গড়ে ১০টি গুলি চলবে। এই রাইফেলের বাট ভাঁজ করে বা লম্বা করে রাখা যায়। এমনকী এই রাইফেলে টেলিস্কোপ যুক্ত করার প্রযুক্তি সংযোজন করা হয়েছে৷ এক একটি রাইফেলের ওজন কমিয়ে করা হয়েছে ৩.৮৫ কেজি। ৩০০ মিটার পর্যন্ত লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত করতে সক্ষম এই AK 203৷

উল্লেখ্য ভারত সরকার AK 103 রাইফেল নেওয়ার পরিকল্পনা করছিল৷ তবে তার জায়গায় এবার AK 203 নেওয়ার বিষয়ে রাশিয়ার সঙ্গে কথা বয়ে গিয়েছে৷ এই বিষয়ে আমেঠিতে সভা করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী জানান৷ আমেঠিতে এই রাইফেল তৈরি করা হবে বলেও জানানো হয়৷

এই সভায় রাহুল গান্ধীকে নিশানা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন,” কিছু মানুষ শুধু মেড ইন জয়পুর, মেড এন ইন্দোরের কথা বলে৷ তবে আমনরা মেড ইন আমেঠিকে বাস্তবায়ন করার চেষ্টা করছি৷”

আজ বিকেলেই লোকসভা ভোটের দিন ঘোষণা করবে কমিশন

নয়াদিল্লি: আজ বিকেলে লোকসভা ভোটের দিন ঘোষণা করতে চলেছে নির্বাচন কমিশন৷ বিকেল পাঁচটায় সাংবাদিক বৈঠকের মাধ্যেমে কমিশন ভোটের নির্ঘন্ট প্রকাশ করবে৷ জি নিউজ সূত্রে এই খবর জানা যাচ্ছে৷

রবিবার বিজ্ঞান ভবনে ভোটের দিন গোষণার জন্য সাংবাদিকদের মুখোমুখি হবেন কমিশনের ফুল বেঞ্চ৷

বিস্তারিত আসছে